Try To Be Different

Post ID # 008

প্র্যাক্টিকালসহ আমাদের এসএসসি পরিক্ষা শেষ হয়েছিল ১৫ মার্চ, ২০১১। আর আমি ১০ তারিখেই একটা স্পোকেন ইংলিশ কোচিং আর কম্পিউটার ট্রেনিং ইন্সটিটিউটে ভর্তি হয়ে এসেছিলাম বাসায় না বলেই। ক্লাস শুরু হয়েছিল ১৬ মার্চ বিকেল থেকে। এসএসসির জন্য একটা দিনও ছুটি কাটাইনি আমি
.
আব্বু জিজ্ঞাসা করেছিলেন, কেন এই কাজ করলাম। আমি আব্বুকে একটা পরিসংখ্যান দেখালাম যেটা আমার ভাবনাতে ছিল আগে থেকেই
.
… ম্যাথ আমার ফেভারেট সাবজেক্ট। ২০১৩-১৪ সেশনে আমার অনার্সে ভর্তি হবার কথা। মনে করি, ম্যাথে অনার্সে ভর্তি হয়ে ২০১৮-১৯ সেশনে মাস্টার্স শেষ করে বের হবো; মনে করি, আমি অনার্স-মাস্টার্সে ফার্স্ট ক্লাস পেয়েই স্টাডি শেষ করলাম। বাংলাদেশে ইউনিভার্সিটি আছে ১৩৬টি। প্রতিটি ক্যাম্পাস থেকে যদি কমপক্ষে গড়ে তিনজন করেও ফার্স্ট ক্লাস পায়, তবুও সেইম ২০১৮-১৯ সেশনে অলমোস্ট ৪০৮ জন ফার্স্ট ক্লাস ক্যারিয়ার স্টুডেন্ট পাওয়া যাবে শুধুমাত্র ম্যাথ ডিপার্টমেন্ট থেকেই।
.
ধরা যাক, কোন এক কোম্পানিতে জব সার্কুলার দিলো এবং ক্রাইটেরিয়া হিসেবে দিলো জব সিকারকে ২০১৮-১৯ সেশনের ম্যাথ ডিপার্টমেন্ট থেকে ফার্স্ট ক্লাস রেজাল্ট নিয়ে পোস্ট-গ্র্যাজুয়েটেড হতে হবে। জব ভ্যাকেন্সি আছে অনলি একটি 🙂
.
… এবং সেখানে সেই আমিসহ ৪০৮ জনই অ্যাপ্লাই করলো। এখন আমার প্রশ্ন ছিল, “আমাদের এই ৪০৮ জনের প্রত্যেকেই ফার্স্ট ক্লাস রেজাল্ট ক্যারিয়ার, প্রত্যেকেই ২০১৮-১৯ সেশনের পোস্ট-গ্র্যাজুয়েটেড। সবারই হাতে অলমোস্ট একই প্রকারের সার্টিফিকেট। তাহলে কি দেখে, কোম্পানির অথোরিটি আমাকেই ‘অনলি ওয়ান’ হিসেবে জবটা দিবে?”
.
এই প্রশ্নের উত্তর সামনে উপবিষ্ট সকলেই চুপ ছিলেন। তখন আমি ব্যাখ্যা দিয়েছিলাম, “সময় যেভাবে সামনের দিকে আগাচ্ছে… বিশ্ব যেভাবে ডিজিটালাইজড হচ্ছে, সেখানে সেই জব প্লেসে আমার ‘গণিতে প্রথম শ্রেণিসহ স্নাতকোত্তর সনদপত্র’এর পাশাপাশি আমার ইংলিশ স্পোকেন স্কিল আর কম্পিউটার অপারেটিং স্কিলটাই আমাকে সাহায্য করবে, বাকি ৪০৭জনের চেয়ে আলাদা করতে। আর এই সার্টিফিকেটসহ ট্রেনিংটা এসএসসির এই তিন মাস ফ্রি টাইমের পর, আর কোন সময়েই পাবো না। এইচএসসির পর অ্যাডমিশন প্রিপারেশন, অনার্সে ইনকাম ভ্যালুসহ বিবিধ কারণে এই জিনিসটা আমি করেই উঠতে পারবো না
.
ঠিক এই একটা যুক্তিতেই আমি আমার ছুটিটাকে আম গাছের মগডালে তুলে দিয়েই ভর্তি হয়েছিলাম দুইটা ট্রেনিং ইন্সটিটিউটে 😛
.
ট্রাই টু বি ডিফারেন্ট ইন পজিটিভ ওয়ে… বিকজ, ইওর পজিটিভ ডিফারেন্স ক্যান হেল্প ইউ টু বি ফার অ্যাওয়ে!
.
লিখেছেন: Isha Khan

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s