বৈশাখের শুরুতেই বৃষ্টি

Post ID # 025

বছরখানেক আগের কথা। এক ছেলের সাথে পরিচিত হলাম। সে একসাথে পাঁচটি মেয়ের সাথে তখন প্রেম চালাচ্ছিলো।

অর্থাৎ মামলা ইন্টারেস্টিং।
জানতে চাইলাম, ‘ভাই, মেইন্টেইন কিভাবে করো? কিভাবে পারো? মানুষ’তো একটাই সামাল দিতে পারে না !’
অতঃপর এব্যাপারে তার রীতিমত গবেষণাধর্মী বিশ্লেষণ শুনলাম। বর্ণনা রীতিমত ভয়াবহ।
তার ভাষায়, প্রেম মানেই জ্বালা।
কিন্তু প্রেম না করেও সে থাকতে পারে না। প্রথম যার সাথে ১০০% honest ছিলো, সে ব্রেকআপ করে অন্যএক ছেলের সাথে সুখে সংসার করতেছে। তো এখন সে নিজেই একাধিক প্রেম করে। একসাথে পাঁচটা !

তার ভাষায়, একটি মেয়ের সাথে প্রেম করা রিক্স। প্রেম মানেই ইনভেস্টমেন্ট। মোবাইলের ব্যাল্যান্স, রেস্তোরার বিল, গিফট, এছাড়া সবচেয়ে দামী ইনভেস্টমেন্ট ‘সময়’।
হাজার হোক, জীবনের মুল্যবান কিছু সময় হুদায় অপচয় করার মত ক্ষতি আর নেই। তো এতোকিছু ইনভেস্ট করার পর যখন মেয়ে অন্যের হাত ধরে ব্রেকআপ করে চলে যায়, তখন ব্যাপারটা হয়ে যায় ভয়াবহ।
বিশ্বাস খুব মুল্যবান জিনিস। এতোসহজে কাউকে বিশ্বাস করতে নেই। সস্তা মানুষ বিশ্বাসের মুল্য দিতে জানে না। সুতরাং, একাধিক প্রেম করুণ। এর অনেক অনেক সুবিধা আছে।

আমি জিজ্ঞাস করলাম, ‘সুবিধাগুলো কি কি ?”

সে বলল, “একজনের সাথে প্রেম করলে দ্রুতই তার উপর একেবারে নির্ভরশীল হয়ে যাবেন। তাঁকে ছাড়া আর কিছু কল্পনাও করতে পারবেন না। যখনই সে বুঝে যাবে, আপনি তার উপর একেবারে নির্ভরশীল, তখনই প্রেমের মজা চলে যাবে। সে আপনার সাথে ভাব মারা শুরু করবে। কারণ সে জানে, আপনাকে লাথি মারলেও আপনি বুমেরাং এর মত তার কাছে ফিরে আসতে বাধ্য ! ব্রেকআপের ভয় দেখিয়ে আপনাকে আতঙ্কের ভেতর রাখবে। তখন আর আপনি প্রেমিক থাকবেন না। ভেড়া হয়ে যাবেন। আপনার পারসোনালিটি বলে আর কিছুই থাকবে না তারকাছে। ছেচড়ামো শুরু করবেন।
এই দেশে গভীর ভালোবাসা’কে দুর্বলতা মনে করে অনেকেই। এমন অবস্থায় রিলেশন হয়ত অটুট থাকবে, কিন্তু প্রেমের মজা হারিয়ে যাবে। আর ভাগ্য বেশি খারাপ হলে মেয়ে আপনার প্রতি ইন্টারেন্ট হারিয়ে অন্যকারোর দিকে ঝুকবে। সুন্দরি মেয়েদের আশেপাশে ঘুরঘুর করা ছেলের অভাব হয় না। বিশ্বাস না হলে যে কোনো সুন্দরি মেয়ের ফেসবুকের ইনবক্সে একবার ধুইকা দেইখেন। অবাক হবেন”

আমি বললাম, ‘কিন্তু উল্টোটাও তো হতে পারে। মেয়ে ভালো মন মানুসিকতার হলে তো গভীর প্রেমের প্রতিদান গভীর ভালোবাসা দিয়েই দেবে”

সে বলল, “ভাই, থামেন। রিয়েলিটিতে আসেন। গভীরতা সবাই ভয় পায়। সেটা যে গভীরতায় হোক না কেন। বিবাহ পূর্ব প্রেম হল দায়দায়িত্বহীন প্রেম। হা, এমন মেয়ে হয়ত আছে, যে গভীরতার প্রতিদান গভীরতা দিয়েই দেবে। কিন্তু তেমন মেয়ে এযুগে কম। কারণ ভালো ছেলেও এযুগে কম। সুতরাং সম্ভাব্যতা কোনদিকে বেশি, সেটা চিন্তা করেন। সেইফ সাইডে থাকেন। সাবধানের মাইর নাই। আজকাল পোলাপাইন তাদের বাবা’ মা’কেও ব্লাকমেইল করে। ভালোবাসার ব্লাকমেইল। কারণ তারা জানে, যতকিছুই হোক, দিনশেষে বাবা মা তাদের ভালোবাসবেই। এবাধন নষ্ট হবার নয়। অস্বীকার করাও অসম্ভব। ফলাফল, বাবা মায়ের ভালোবাসার দুর্বলতার সুযোগ তারা নেয়। ওই যে বললাম, ভালোবাসার দুর্বলতা !! আসলে মানুষ এতো মহৎ কোনো কালেই ছিলো না। হবেও না। মানুষ সুযোগ সন্ধানী ও গড়পড়তায় সুবিধাবাদী”

“তো একাধিক প্রেমের আর কি কি সুবিধা? শুনি। শুনে ধন্য হই “

‘ভাই, প্রেম করাটা অনেকদিক দিয়েই টিউশনি পাবার মত। যে পায়, সে পেতেই থাকে। আর যে পায় না, সে একটাও পায় না। একাধিক প্রেম একসাথে চালালে কোনো মেয়ের প্রতিই দুর্বল হবেন না। মানুসিকভাবেও নির্ভরশীল হয়ে যাবেন না। প্রতিটি মেয়েই ব্যাপারটা বুঝবে যে আপনি ১০০% ডিডিকেটেড এখনো না। অর্থাৎ তার জন্য মজনু টাইপের পাগল হবার সম্ভবনা আপনার নাই। প্রতিটি মেয়েই চাইবে আপনাকে মজনু বা রোমিও বানাতে। কিন্তু যখন পারবে না, তখন তাদের মনে দ্বন্দ্ব তৈরি হবে। ফলাফল, মেয়েই উল্টা আপনার প্রতি পাগল থাকবে। উল্টো তারাই ব্রেকআপের ভয়ে থাকবে। মেয়েরা নির্ভার হলে স্বস্তি পাবে। তাদের ভালোবাসা দেবেন অল্প অল্প করে। সর্বদা হারানোর ভয়ের ভেতর রাখবেন তাদের। এই গেল, এই গেল, পাখি উড়ে গেল, টাইপের ভয়। এসবই সাইকিক ব্যাপার স্যাপার। আর ভুলেও বলবেন না, আপনার কোনো মেয়ে বন্ধু নেই। বরং বলবেন, অনেক সুন্দরি সুন্দরি মেয়েই আপনার Just friend… এটা তাঁকে জেলাস রাখবে। কারণ তারও just friend লিস্টে অনেক ছেলে আছে। আপনার অবর্তমানে তারা যেমন just friend থেকে তার boy friend হয়ে যেতে পারে, ঠিক তেমনই আপনারও অনেক just friend তার অবর্তমানে আপনার girl friend হয়ে যেতে পারে, এই ভয় যেন তার মনে থাকে। অবচেতন মনেই তার মনে খটকা বাধবে। কোন মেয়েই চায় না তার প্রেমিকের সাথে অন্যমেয়ে আড্ডাবাজি গালগল্প করুক”

আমি বললাম, ‘বুঝলাম তোমার ব্যাখ্যা। তো বিয়ে কি পাঁচজন’কেই করবা? “

“না ভাই। বিয়ে একজন কেইই করবো। এই পাঁচজনের ভেতর শেষপর্যন্ত যার ভালোবাসা রিলেটিভলি সবচেয়ে খাটি মনে হবে, তাঁকে করবো। বাকিরা আউট। বিয়ের পর বউ’কে ১০০% ডেডিকেশন দিয়ে ভালোবাসবো”

‘হুম, বুঝলাম”

“ভাই, আজকাল প্রেম নামক বিবাহ পূর্ব সম্পর্ক একেবারেই ঠুনকো। এটা পাওয়া যেমন এখন একেবারে সহজ হয়ে গেছে, তেমন এটা সস্তাও হয়ে গেছে। কোনো দ্বিতীয়, তৃতীয় প্রেম নেই। সব প্রেমই প্রথম প্রেম। প্রেমের কথোপকথন হল একরাশ অভিনয় আর মিথ্যার ফুলঝুরি। আপনি honest থাকলেও যে আপনার প্রেমিকা honest থাকবে, এর গ্যারান্টি কি? গ্যারান্টি নেই। মুখের কথা বিশ্বাস করা আর অন্ধবিশ্বাস করা একই জিনিস। কে কেমন তা কে জানে? এজন্যই আমি স্বার্থপর হয়ে গেছি। আমি কেবল আমার নিজের সুখের কথা ভাবি। অন্যের ব্যাপারে অনেকআগে একবার ভেবেছিলাম। সে কষ্ট দিয়ে অন্যের হাত ধরে চলে গেছে। তখন আমার ওই একটাই প্রেমিকা ছিলো। আর কেউ ছিলো না। আর আজ এখন আর আমি honest না। আজ আমার ৫ টা প্রেমিকা !! এরা প্রত্যেকেই আমাকে নিয়ে স্বপ্ন দেখতেছে। আমার জন্য পাগল। আমি যদি বলি, আজ সারাদিন আকাশের দিকে তাকিয়ে থাকো, ওরা থাকবে। আর একাধিক প্রেম করলে গিফটের ঝামেলা থেকে বেঁচে যাবেন। অমুক আপনাকে গিফট দিলে তার গিফটটাই তমুক’কে দেবেন। আবার তমুক’কের দেয়া গিফট অমুক’কে দেবেন”

আমি জিজ্ঞাস করলাম, “আচ্ছা, এসব করে কি হ্যাপি হওয়া আদেও যায়? সত্যি সত্যি বলো”

“ভাই, হ্যাপি হই বা না হই, কষ্ট পাবার ভয় আমার নেই। waiting list টা অনেক বড় থাকলে এই এক সুবিধা। কেউ ব্রেকআপ করে চলে গেলেও সমস্যা নেই। আর নিজের attitude ধরে রাখতে পারবেন। কারো সাথে কথা বলার সময়ই গলায় ন্যাকামি আসবে না”
.
.
.
তার সাথে আরো কিছুক্ষন কথা হল।
কি বলবো, বুঝতে পারতেছিলাম না। খালি শুনে গেলাম।

অনেকদিন পর তার সাথে দেখা। মনের মত এক সুন্দরি ললনা’কে বিয়ে করে একটা ফুটফুটে বাচ্চার বাবা হয়ে গেছে সে।
.

বসে বসে ভাবছি। শুধুই ভাবছি। সুখ শান্তি মনের ব্যাপার। দুনিয়াটা কি আনফেয়ার? আসলে দুনিয়া ঠিকই আছে। আমরা মানুষরাই আনফেয়ার হয়ে যাই নানান কারণে। সব কাহিনীর পেছনেই ভিন্ন কাহিনী থাকে। পটভূমি থাকে। রচনার সুচনা না পড়ে, উপসংহার পড়া একারণেই ঠিক না।

আজ অনেকদিন পর বৃষ্টি দেখতে দেখতে চায়ের কাপে মুখ দিলাম। আসলে যা হবার সেটা হবেই। কেন হয়, কিভাবে হয়, এসব জানতে চাই না এখন আর। এই দুনিয়াতে যা হবার, সেটা হয়। হচ্ছে। হবে।
কাল বৈশাখীর ঝড় হচ্ছে। বৈশাখের শুরুতেই বৃষ্টি। এমনটিই তো হয় সবসময়।

— Faisal shovon

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s